1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব সখীপুরে ‘মুক্তিযুদ্ধের কবিতা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

হাতের লেখাই বলে দিবে সব!

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ৯ জুলাই, ২০১৮
Check for details

জার্মানবাংলা২৪ ডেস্ক: আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। মালয়েশিয়া, ভারত, চিন, বাংলাদেশ ও ইরানে গবেষণা চলছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের মাধ্যমে। হাতের লেখা দেখেই বলে দেওয়া যাবে, কোথায় আপনি বেড়ে উঠেছেন, কোন দেশের মানুষ আপনি। এমনটাই এমনটাই দাবি করছেন আমেরিকার বিজ্ঞানীদের একাংশ।

আমেরিকার কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এই দেশগুলির নাগরিকদের হাতের লেখার ভিত্তিতে একটি নির্দিষ্ট গাণিতিক ফর্মূলা বা ‘অ্যালগরিদম’ বানিয়েছেন। প্রতিটি দেশ থেকে প্রথম দফায় ১০০ জন নাগরিকের হাতের লেখা বিশ্লেষণ করেছেন। সেই সব তথ্য দিয়েই ওই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সফটওয়্যারটি বানানো হয়েছে।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের গবেষণায় ক্লাউড অফ লাইন ডিস্ট্রিবিউশন নামে একটি পদ্ধতির মাধ্যমে কোনও ব্যক্তির হাতের লেখার ওঠাপড়া (কার্ভ অ্যান্ড লাইনস) দেখেই চিনে নেওয়া যাচ্ছে তার নাগরিকত্ব। চীনের একজন নাগরিক সরলরেখায় ইংরেজি লিখবেন। তবে ভারত বা বাংলাদেশের নাগরিকদের ক্ষেত্রে রোমান হরফ বেশ খানিকটা বাঁকা, এমনটাই বলছে এই গবেষণা। দেশের নিরাপত্তায় এই ধরনের গবেষণা সবচেয়ে বেশি কাজে আসবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details