1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব

সান্তাহারে টানা বর্ষণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৮
Check for details

তরিকুল ইসলাম জেন্টু (বগুড়া): গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে বগুড়ার সান্তাহারসহ উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে এক হাজার হেক্টর সদ্য রোপনকৃত আমন ধানগাছ পানির নীচে তলিয়ে গেছে।

অপর দিকে জলাবদ্ধতার কারণে ধান বীজতলা ডুবে নষ্ট হওয়ায় অনেক কৃষক এখনও জমিতে আমন ধান রোপন করতে না পেরে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। ফলে এবার আমনের আবাদ আশানুরুপ না হওয়ার আশংকা রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায়, সান্তাহার পৌরসভাসহ উপজেলায় ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ মিলে এবার ১২ হাজার ৫০০শত হেক্টর জমিতে হাইব্রিডজাত, উফশিজাত এবং স্থানীয়জাতের রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই কৃষকরা প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমিতে ধান লাগিয়ে ছিলেন।

এদিকে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টির কারনে নদী নালা গুলোতে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ থাকায় সান্তাহারের নিম্নাঞ্চলের দমদমা, সান্দিড়া, প্রসাদখালি ও পার্শ্ববর্তী কদমা, করজবাড়ী, দক্ষিণ গণিপুর, রামপুরা, কাশিমালা, জোড়পুবুরিয়া, পূর্ব মুরইল, নসরতপুর, ধনতলাসহ প্রায় ১৯/২০টি গ্রামের মাঠে জমিতে পানি উঠে প্লাবিত হয়েছে।
এতে এক হাজারেরও অধিক সদ্য রোপন করা আমন ধান পানির নীচে তলিয়ে রয়েছে।

এছাড়াও অধিকাংশ মাঠের ধান বীজতলা ডুবে নষ্ট হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক আফছার আলী, জাকির সরদারসহ অনেকেই জানান, বন্যার পানি সরিয়ে গেলেও বীজ সংকটে কারণে জমিতে ধান রোপন করা কঠিন হবে।

সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদুল হক টুলু বলেন, সান্তাহারসহ উপজেলার নিম্নাঞ্চলের পানি নিস্কাশনের জন্য রাণীনগরের রাবারড্যাম অপসারণ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে এ এলাকার মাঠের পানি আশনুরূপ ভাবে নিস্কাশন সম্ভব হচ্ছে না।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কামরুজ্জামান জানান, অল্প দিনের মধ্যে বৃষ্টিপাত বন্ধ ও পানি সরিয়ে গেলে রোপা আমন ধানের তেমন ক্ষতির সম্ভাবনা থাকবে না।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details