1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব

শীতলক্ষ্যার মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১৯
Check for details

হাবিবুর রহমান, গাজীপুর প্রতিনিধি : উত্তাল শীতলক্ষ্যার জলধারা এখন ক্ষীণ । বইছে ধীরে । নেই এ নদীর ছলাছল শব্দ । নদীর বুকে নেই মাঝির গান । এ নদীর যৌবন এ মুহুর্তে আর নেই, নদীতে পানির প্রবাহ কমে পানি নেমে যাওয়ায় এ মৌসুমে নদীর উভয় পাশে উঁকি দিয়েছে পলিমাটির চর। চরের এ মাটি দেখে আর যেন তর সইছেই না মাটি দস্যুদের। তারা কখনও রাতের আধাঁরে কখনও দিনে নদীর তীরের এ মাটি কাটছে প্রতিদিন । অনেকটা বিনা বাধায় , উৎসব করেই ।
কেটে নেয়া মাটি যাচ্ছে নদীর পাশে গড়ে উঠা ইটভাটায়।

গত কয়েকদিন ধরেই গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার কুড়িয়াদী খেয়াঘাট সংলগ্ন এলাকায় প্রশাসনের চোখের আড়ালে এমন মাটি কাটার যেন উৎসব চলছে।

স্থানীয়দের তথ্যমতে, শীতলক্ষ্যা নদীটি কিশোরগঞ্জ ও গাজীপুর জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা টোক নামক স্থানে পুরাতন ব্রক্ষপুত্র হতে উৎপত্তি হয়ে শ্রীপুর, কাপাসিয়া ও কালিগঞ্জ উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। কাপাসিয়ার সিংহশ্রী ইউনিয়নের কুড়িয়াদী খেয়াঘাট এলাকায় নদীটির সরকারী অংশ হতে মেশিন চালিত মাটি কাটার যন্ত্রের (ভেকু) সাহায্যে গত কয়েকদিন ধরেই মাটি কাটা হচ্ছে। পরে এই মাটি ট্রাক যোগে নেয়া হচ্ছে পাশের এবিবি ব্রিক্স নামের একটি ইটভাটায়। এ মাটি কাটার নেতৃত্ব দিচ্ছেন আবুল হায়াত নামের স্থানীয় এক নেতা। সে আবার সিংহশ্রী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফউদ্দিন আল-আমিনের ছোট ভাই।

স্থানীয় কুড়িয়াদী খেয়াঘাটের অটোচালক বাদল মিয়া জানান, ভেকুর সাহায্যে প্রতিদিনই নদী থেকে মাটি কাটা হচ্ছে। বিশেষ করে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন ও রাতের বেলায় মাটি কাটা হয়। পরে এসব মাটি স্থানীয় ইটভাটায় ট্রাকের সাহয্যে পৌছে দেয় মাটি ব্যবসায়ীরা। এতে নদীর যেমন ক্ষতি হচ্ছে তেমন ক্ষতি হচ্ছে গ্রামীণ সড়কেরও।

স্থানীয় কৃষক জিরু মিয়া জানান, বিভিন্ন নদীতে ভাঙ্গা গড়ার খেলা হলেও শীতলক্ষ্যা ব্যতিক্রম। এর পানি কখনও নদীর সীমানা অতিক্রম করে না। নদীর সীমানা থেকে পানি নেমে যেত তখন আমরা নদীর জমিতেই নানা ধরনের কৃষিকাজ করতাম। কিন্তু এখন যেভাবে গর্ত করে অপরিকল্পিতভাবে মাটি কেটে নেয়া হচ্ছে এতে সবারই ক্ষতি হচ্ছে। বিশেষ করে নদীকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠা কৃষি অর্থনীতির।

সিংহশ্রী গ্রামের মাদ্রাসা শিক্ষক আবুল হাসেম জানান,নদী থেকে যেভাবে মাটি কাটা হচ্ছে তাতে নদীটির সাথে ঘেষে থাকা কৃষকের ফসলী জমিও নদীতে রুপান্তর হয়ে যাবে।

নদীর মাটি নিজের ইটভাটায় নেয়ার বিষয়ে এবিবি ব্রিক্সের মালিক অহিদুল ইসলাম ভূইয়া জানান,আমরা সরাসরি নদী থেকে মাটি কাটি না। তবে আমরা বিভিন্ন মাটি ব্যবসায়ীদের কাছ হতে ভাটার জন্য মাটি কিনে থাকি। আমাদের এখানে মাটি সরবরাহ দিচ্ছেন স্থানীয় আবুল হায়াত। এ বিষয়ে তার সাথেই যোগাযোগের পরামর্শ দেন তিনি।

মাটি কাটার বিষয়ে আবুল হায়াতের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ইটভাটার জন্য এখন আর তেমন মাটি পাওয়া যায়না, তাই কিছু মাটি নদীর পাশ থেকে নেয়া হয়েছে। আমরা জানতাম এসব জোত জমি, তাই মাটি কেটেছি। তবে ভবিষ্যতে আর মাটি কাটব না।

সিংহশ্রী ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ড সদস্য হাজী আব্দুল ওয়াহেদ জানান,গত কয়েকদিন ধরেই সরকারী নদী থেকে মাটি কাটছে দেখে আমি স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে বাধা প্রদান করেছি। প্রয়োজনে প্রশাসনকেও অবহিত করব।
নদী থেকে মাটি কেটে ইট ভাটায় নেয়ার বিষয়ে গাজীপুরের পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আব্দুস সালাম জানান, নদীর ভূমি থেকে মাটি কাটার কোন ধরনের সুযোগ নেই। আমরা সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেব

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details