শাহজাদপুরে স্কুলছাত্র হত্যা

Check for details

এইচ এম আলমগীর কবির,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের চরবর্ণিয়া গ্রামের স্কুলছাত্র ইউনুস আলী (১৪) হত্যার তদন্ত পুলিশের পাশাপাশি সেনা, ডিজিএফআই ও এনএসআই তদন্ত করছে বলে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান জানিয়েছেন।

তিনি জানান, পুলিশের পাশাপাশি রাজশাহী, বগুড়া, ঘাটাইল ও যশোর সেনানিবাসের পক্ষ থেকে পৃথক ভাবে ৪টি ডিজিএফআইয়ের পক্ষ থেকে ১টি ও এনএসআইয়ের পক্ষ থেকে একটি মোট ৬টি ছায়া তদন্ত হচ্ছে। এ সব তদন্তে প্রকৃত হত্যাকারীকে তা উঠে আসবে। মামলার স্বার্থে তা এখনই প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছেনা। এমনকি এসব সংস্থার কারা এ তদন্ত করেছেন তাদেও নাম ও পদবীও তিনি প্রকাশ করেননি।

অপর দিকে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের সৈনিক পলাশ উদ্দিন মোল্লার চাচি ও চরবর্ণিয়া গ্রামের হবিবর রহমানের স্ত্রী মোছাঃ ফাতেমা খাতুন বাদী হয়ে শাহজাদপুর চৌকি আদালতে গত মঙ্গবার ৬২ জনকে আসামী করে পুলিশের গুলিতে স্কুলছাত্র ইউনুস হত্যা ও বাড়িঘরে হামলা, মারপিট, লুটপাট, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ৩২৩/৩৭৯/৩৮০/৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় প্রায় পৌনে ২১ লক্ষ টাকার মালামালের ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ছাড়া গত মঙ্গলবার সকালে শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে স্কুলছাত্র ইউনুস আলী হত্যা মামলার বাদী জয়নাল শেখের নের্তৃত্বে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের সৈনিক পলাশ উদ্দিন মোল্লার ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন, সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

উল্লেখ্য, ঈদের আগের দিন গত ৪ জুন মঙ্গলবার সকালে শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের চরবর্ণিয়া গ্রামের সৈনিক পলাশ উদ্দিন মোল্লা গ্রুপের সাথে প্রতিপক্ষ আখের শেখ গ্রুপের হামলা, সংঘর্ষ, বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ সময় আখের শেখ ও মাবুদ আলীসহ উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়। খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। পুলিশের দাবী এ সময় সৈনিক পলাশ মোল্লা পুলিশের হাত থেকে শর্টগান কেড়ে নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনের উপর গুলিবর্ষণ করে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে স্কুলছাত্র ইউনুস ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

আপর দিকে সৈনিক পলাশ মোল্লার পরিবারের দাবী পুলিশের ছোড়া গুলিতেই স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। কারণ হিসাবে তারা জানান, গুলিবর্ষণের সময় পলাশসহ ৯ জন পুলিশ হেফাজতে একটি ঘরে আটক ছিলেন। এ ছাড়া কাশেম নামের এক আহত রোগীকে পুলিশ হাসপাতালে নেয়ার সময় আখের শেখ গ্রুপের লোকজন পুলিশের উপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে তাদের উপর গুলি চালায়। এ সময় ইউনুস গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়।

Facebook Comments