1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানবাংলা’র ‘RJ মিউজিক্যাল লাইভ শো’তে এবার আসছে গানের দল “অন্তরীণ” হেসেন ফ্রাঙ্কফুর্ট আওয়ামীলীগ কর্তৃক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২২’ উপলক্ষ্যে ১১ দফা প্রস্তাব উত্থাপন জার্মানবাংলা’র “প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “শম্পা কুন্ডু” জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “সাজেদ ফাতেমী” স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী স্বরণ ও দেশনেত্রী’র দোয়ায় বিএনপি’র জার্মানি শাখা। জীবননগরে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১ ব্রাসেলসে অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের অভিষেক দুবাই ওয়ার্ল্ড এক্সপোতে অংশগ্রহণ করবে ওয়েন্ড-এর প্রতিনিধি দল গোধূলির ছায়া

রামপুরায় কুকুর হত্যা মামলার রায় আজ

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১০ মে, ২০১৮
bd-journal
Check for details

জার্মান-বাংলা ডেস্ক: ১৪টি বাচ্চাসহ দুটি মা কুকুরকে জীবন্ত কবর দেয়ার ঘটনায় করা মামলার রায় ১০ মে (বৃহস্পতিবার)। এর আগে গেল বছরের ২৯ অক্টোবার এ ঘটনায় রামপুরা থানায় মামলা দায়ের করে পিপল ফর এনিমেল ওয়েলফেয়ার। মামলার সাক্ষী করা হয় প্রাণী কল্যাণ সংগঠন কেয়ার ফর পজ। এ প্রেক্ষিতে চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল মামলার প্রথম শুনানি সম্পন্ন হয় ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে।
আসামী পক্ষ দোষ স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন করলে আদালত তা না মঞ্জুর করে সাক্ষীদের উপস্থিত হবার নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে গত ৬ মে এই মামলার ১৫ জন সাক্ষী আদালতে হাজির হয়ে সাক্ষ্য দেন। সেই প্রেক্ষিতে এ মামলার শুনানির দিন আগামী ১০ মে ধার্য করেন আদালত।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৫ অক্টোবর মধ্যরাতে রাজধানীর পশ্চিম রামপুরার মহানগর প্রোজেক্ট এলাকার বাগিচারটেক জামে মসজিদের পাশে ১৪টি চোখ না ফোঁটা বাচ্চাসহ দুটি মা কুকুরকে জীবন্ত পুঁতে ফেলা হয়। ঘটনার পরপরই ২৮ অক্টোবর রামপুরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়।

স্থানীয়রা তখন অভিযোগ করেন, বাগিচারটেক কল্যাণ সমিতির নির্দেশে নির্মম এ কাজটি করেন এলাকার এক নিরাপত্তারক্ষী। প্রথমে দুইটি মা কুকুরকে পেটানো হয়, চোখ উপড়ে ফেলা হয়, হাড় ভেঙে ফেলা হয়। এরপর তাদের চোখ না ফোঁটা ১৪টি বাচ্চাকে বস্তাবন্দী করা হয়। পরে দুই মা কুকুরসহ বাচ্চাগুলোকে জীবন্ত পুঁতে ফেলা হয় বাগিচারটেক জামে মসজিদের পাশে একটি ফাঁকা জায়গায়।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details