1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
লেবাননে প্রবাসী অধিকার পরিষদের ইফতার মাহফিল বেগম জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেবে সরকার : অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা : ভারতে শনাক্ত ২ কোটি ছাড়াল করোনা : বিধিনিষেধ আবারও বাড়ল, চলবে না দূরপাল্লার বাস অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফয়সাল ও সম্পাদক ফারুক মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল জামালপুরে নতুন কমিটি গঠন জেলহাজতে শিশু বক্তা রফিকুল ইসলাম মাদানী জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “আঁখি হালদার” আয়েবপিসি’র কার্যনির্বাহী পরিষদের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত জার্মানবাংলা’র ”প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি ”শিরীন আলম”

রাজীবপুরে কৃষি বিভাগের পার্চিং উৎসব

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
Check for details

আবু সাইদ, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: ধানের ক্ষতিকর মাজরা পোকা দমনে পার্চিং একটি পদ্ধতি ব্যবহার দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিষমুক্ত ভাবে পোকা দমনের এই পদ্ধতি কৃষকদের মাঝে ব্যাপক ভাবে প্রসার ও প্রচার করার লক্ষে কুড়িগ্রাম জেলার রাজীবপুর উপজেলায় শুরু হয়েছে কৃষি বিভাগের উদ্যোগে পার্চিং উৎসব।

বৃহষ্পতিবার রাজীবপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের কলেজ পাড়া ও বটতলা এলাকায় আমন ধানের জমিতে গাছের ডাল ও বাঁশের কঞ্চি পুঁতে আনুষ্ঠিন ভাবে ওই কর্মসূচির শুভ উদ্ধোধন করেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কুমার প্রণয় বিষাণ দাস । এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা খায়রুল ইসলাম, উপজেলার বিভিন্ন বøকে কর্মরত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা,কৃষক আফসার আলী, হয়রত, জব্বার হোসেন সহ প্রমুখ।

পার্চিং বলতে ফসলি জমিতে লম্বা গাছের ডাল বাঁশের খুঁটি বা কঞ্চি পুতে রাখা এত করে জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি ওই খুঁটিতে বসে জমির উপরি ভাগের দৃশ্যমান পোকা খেয়ে ফসল সুরক্ষা করে।ধানের জমিতে পার্চিং করা হলে প্রাকৃতিক ভাবে পোকা নিয়ন্ত্রন করা যায়।এই পার্চিং করার ফলে জমিতে ক্ষতিকর মাজরা পোকার আক্রমন হয়না। ফসলের উৎপাদন খরচ কমে যায় বিষ প্রয়োগ না করার কারনে পরিবেশ দুষণ হয় না আর্থিক ভাবেও কৃষক লাভবান হয়।

পাচিং উৎসব এর বিষয়ে জানতে চাইলে রাজীবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কুমার প্রণয় বিষাণ দাস বলেন, প্রতিবছর কৃষকদের উৎসাহ প্রদান করে পার্চিং করা হয়।চলতি আমন মৌসুমে ধানের ফলন নিশ্চিত করতে রোগ ও পোকামাকড় কমাতে উপজেলার প্রতিটি ব্লকে কৃষকদের নিয়ে উৎসব এর আমেজে পার্চিং উৎসব করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details