1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : germanbangla24.com : germanbangla24.com
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানবাংলা’র ”প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি ”মিনহাজ দীপন” জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী ”ফারজাহান রহমান শাওন” বাগেরহাটে ৭ দিনব্যাপী বই মেলা শুরু জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি, বাচিকশিল্পী “জান্নাতুল ফেরদৌসী লিজা” টিকার দ্বিতীয় ডোজ ৮ সপ্তাহ পর : স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ১৪ ফেব্রুয়ারি, উপেক্ষিত ‘সুন্দরবন দিবস’ জীবননগর পৌর নির্বাচন : আচরণবিধি লঙ্ঘন ,৩ জনের সাজা জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি শিল্পী ”বিথী পান্ডে” বাগেরহাটে ওরিয়ন গ্রুপের বিরুদ্ধে গ্রাম্য সড়ক দখলের অভিযোগ বাগেরহাটে জুয়েলারি দোকান হতে ১০০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার চুরি

মেলান্দহ ছড়িয়ে পড়েছে ব্লাস্ট রোগ

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮
Check for details

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় চলতি বোরো মৌসুমে ধান ক্ষেতে ছত্রাক জনিত ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। এতে করে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষক পরিবারগুলো।

উপজেলায় চলতি মৌসুমে ২০ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ করা হয়েছে। অন্য জাতের ধান ভাল হলেও ব্রি-২৮ জাতের ধান ক্ষেতে গত বছরের মতো এবারও ব্লাস্ট রোগ দেখা দিয়েছে। এ রোগ দেখা দেওয়ায় কৃষকদের মাঝে আশানুরুপ ফলন না হওয়ার আতংক দেখা দিয়েছে।

ঘোষের ইউনিয়নের ছবিলাপুর গ্রামের আলম শেখ জানান, ৬ বিঘা জমিতে ২৮ জাতের ধান চাষ করেছি। অনেক শীলা বৃষ্টি হওয়ার পরেও ফলন ভালই হবে মনে করেছিলাম। কিন্তু গত কয়েকদিন আগে ক্ষেতে এসে দেখি, ধানের শীষ মরে যাচ্ছে। আজ দেখছি ধানের শীষ চিটা হয়ে গেছে। তাতে ফলন তো হবেই না বরং আবাদ করে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। এতে সারা বছর আমাদের পরিবার নিয়ে অনেক কষ্ট করতে হবে।

একই গ্রামের হেলাল উদ্দিন জানায় , ব্রি-২৮ ও ২৯ ধান প্রায় ৫ একর জমিতে চাষ করেছি। অন্য ধান কিছুটা ভাল থাকলেও ২৮ জাতের ধান মরে যাচ্ছে ও চিটা হচ্ছে। ক্ষেতে নতুন এই রোগটি প্রথমে দু-একটি শীষে দেখা যায় পরে কয়েকদিনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে সমস্ত ধান ক্ষেতে। তবে আমি কীটনাশক স্প্রে দিয়েছি কোন কাজ হয় নাই। তবে আমাদের কৃষি অধিদপ্তর একটু খোজ খবর নিলে হয়ত এমন হতো না

রকিব হাসান (নয়ন) জামালপুর প্রতিনিধি

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details