1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব সখীপুরে ‘মুক্তিযুদ্ধের কবিতা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

মহেশপুরে বেড়েছে অবৈধ ইটভাটা, প্রশাসন নীরব

শামীম খাঁন, মহেশপুর(ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
Check for details

সরকারি অনুমতি ছাড়াই চালানো হচ্ছে ঝিনাইদহের মহেশপুরে বৈধ অবৈধ ইটভাটা। এখানে ২২টি ভাটার মধ্যে সরকারি ভাবে লাইসেন্স আছে ৫টিতে বাকীগুলো অবৈধ ভাবে চালালেও প্রশাসন রয়েছে একেবারেই নিরর। প্রাপ্ত সূত্রে প্রকাশ, মহেশপুর উপজেলা একটি কৃষি প্রধান এলাকা। এখানকার মানুষ কৃষির উপর নির্ভরশীল। এই উপজেলার অধিকাংশ ইটভাটাগুলি কৃষি জমির উপরিভাগ কেটে ইট তৈরীর কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। একই সাথে উজাড় হচ্ছে বৃক্ষ ও ফলজ গাছ। বিশেষ করে ইটভাটার কারণে বিলুপ্ত হচ্ছে খেজুর গাছ। এছাড়া অর্ধেকের বেশী ভাটায় টিনের চিমনি ব্যবহার করা হচ্ছে। ভাটার মালিকগন সরকারি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রশাসনের নাকের ডোগায় ইটভাটার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ইটভাটার মৌসুমের চার মাস পার হলেও পরিবেশ অধিদপ্তরের লোকজনকে মাঠ পর্যায়ে কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। মহেশপুর উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি আব্দার রহমান বলেন, তারা স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এই ভাটা চালিয়ে আসছে। উপজেলার পদ্মপুকুরে রাফিদ ইটভাটার মালিক রুবেল হোসেন জোর গলায় বলেন, সাংবাদিকরা ইটভাটা নিয়ে লেখালেখি করলে তার কিছুই হবে না। তিনি আরো জানান, স্থানীয় প্রশাসন তার হাতের ইশারায় চলে। এ ব্যাপারে খুলনা পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক সাইফুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ঝিনাইদহ জেলায় বেশকিছু ইটভাটায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছি। এবং এর কার্যক্রম অব্যাহত আছে। অচিরেই মহেশপুরের অবৈধ ইট ভাটা গুলোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া জেলা প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হয়েছে। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার বলেন, এ উপজেলায় যারা আইন অমান্য করে লাইসেন্স বিহীন ইটভাটা চালাচ্ছেন তাদের খোঁজ-খবর নিয়ে দ্রত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details