‘বার্সায় ফিরলেন নেইমার’

Check for details

জার্মান-বাংলা ডেস্ক: বার্সেলোনা থেকে দুই বছর আগে পিএসজিতে নাম লেখানোর পরেও সাবেক ক্লাবটির ‘মায়ার বন্ধন’ ছেড়ে যেন বেরই হতে পারছেন না নেইমার। বার্সেলোনায় এসেছেন তিনি। তবে কাতালান ক্লাবটার সমর্থকদের উচ্ছ্বসিত হওয়ার কারণ নেই। বার্সেলোনার হয়ে খেলবেন না তিনি। তাহলে?

একটু খোলাসা করে বলা যাক। ঘটনাটা ২০১৬ সালের অক্টোবরের। তখন মেসি-সুয়ারেজদের সঙ্গে বার্সেলোনাতেই খেলতেন নেইমার। সুখেই ছিলেন। লিগ জিতেছেন, জিতেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ। মেসির পর দলের হাল নেইমারই ধরবেন, এ আশায় বার্সা সে সময়ে নেইমারের চুক্তি নবায়ন করেছিল। বলা হচ্ছিল, নতুন চুক্তি অনুযায়ী ২০২২ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় থাকবেন নেইমার। চুক্তির একটা শর্ত ছিল, চুক্তির পুরোটা সময় অন্যান্য ক্লাবের আগ্রহ ও ডাক অগ্রাহ্য করে নেইমার বার্সেলোনায় থেকে গেলে, নেইমার ৪০ মিলিয়ন ইউরো ‘আনুগত্য বোনাস’ পাবেন। অর্থাৎ বার্সেলোনার প্রতি নিজের আনুগত্য প্রমাণ করার একটা পুরস্কার পাবেন।

না, শিরোনামে ভুল কিছু নেই। আসলেই বার্সেলোনায় ফিরেছেন নেইমার। তবে এতটুকু পড়েই আশাবাদী হওয়ার কোনো কারণ নেই। চোটাক্রান্ত মেসির জায়গায় মাঠে দলটার হাল ধরতে আসছেন না নেইমার, আসছেন না ভুবন-ভোলানো খেলার জাদুতে কাতালান ক্লাবটির দর্শকদের মুগ্ধ করতে। উল্টো নেইমারের আগমন বার্সেলোনার কর্তাব্যক্তিদের কপালের ভাঁজ আরও বাড়িয়ে দেবে, তা নিশ্চিত। ক্যাম্প ন্যুর মাঠে নয়, বরং বার্সেলোনার আদালতে নিজের ‘খেল’ দেখাতে এসেছেন নেইমার।

কিন্তু সেই চুক্তি নবায়নের এক বছরের মধ্যেই পাশার দান পাল্টে গেল। বার্সেলোনায় থাকতে হলে মেসির ছায়াতেই কাটিয়ে দিতে হবে বাকি ক্যারিয়ার, মেসিকে হটিয়ে বার্সার প্রধান খেলোয়াড় হতে পারবেন না, সেটা বেশ বুঝেছিলেন নেইমার। ফলে পিএসজির ডাকে সাড়া না দিয়ে পারেননি। নিজে চলে গেলেন পিএসজির ‘মেসি’ হতে। চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে যেহেতু বার্সা ছাড়লেন, স্বাভাবিকভাবেই ‘আনুগত্য বোনাস’ পাবেন না। বার্সাও দেয়নি। আর এতেই চটেছিলেন নেইমার। ৪০ মিলিয়ন ইউরোর মধ্যে বার্সা ছাড়ার আগেই কোনো রকমে ১৪ মিলিয়ন ইউরো নিয়ে নিতে পারলেও বাকি ২৬ মিলিয়ন ইউরো নেইমারকে আর দেয়নি বার্সা।

আর এতেই নেইমারের ক্ষোভ। বার্সেলোনার বিপক্ষে মামলা করে দিয়েছেন কোর্টে। বাকি ২৬ মিলিয়ন ইউরোও ফেরত চান তিনি। বার্সাও কি বসে থাকার পাত্র? নেইমারকে দিয়ে দেওয়া সেই ১৪ মিলিয়ন কড়ায়-গন্ডায় ফেরত পেতে চায় তারাও। এই নিয়েই গত দুই বছর ধরে বার্সেলোনার ‘কোর্ট অব জাস্টিস’ এ মামলা চলছে। সে মামলার শুনানিতে হাজিরা দেওয়ার জন্যই নেইমারের বার্সেলোনায় ফিরে আসা।

সদ্য শেষ হওয়া দলবদলের বাজারে নেইমার অনেক চেষ্টা করেছিলেন বার্সেলোনায় ফেরার। পিএসজিতে তাঁর মন টিকছিল না। বার্সাও চেয়েছিল অতীতের সকল ঝগড়াঝাঁটি ভুলে আবারও ব্রাজিল তারকাকে আপন করে নিতে। কিন্তু পিএসজি এই ‘মহামিলন’ হতে দেয়নি। এদিকে নেইমারের পক্ষ থেকে মনে করা হচ্ছে, নেইমারকে দলে আনার জন্য যথেষ্ট চেষ্টা করেনি বার্সা। এমন মত বার্সেলোনার কিছু খেলোয়াড়েরও। নেইমারকে না এনে বরং অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের আঁতোয়ান গ্রিজমানকে দলে এনেছে তারা।

নেইমার যদি আবারও বার্সেলোনায় যোগ দিতেন, তাহলে হয়তো বার্সেলোনার বিরুদ্ধে ‘আনুগত্য বোনাস’ দেওয়ার এ মামলা তুলে নিতেন ব্রাজিল তারকা। সেটা যেহেতু হলোই না, মামলা চালাতে ক্ষতি কী?
আজ শুক্রবার স্প্যানিশ সময় সকাল সাড়ে নয়টায় শুরু হবে শুনানি। নেইমারের পক্ষ থেকে তিনি ও তাঁর বাবা উপস্থিত থাকবেন।

Facebook Comments