1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman Ruma
  3. anikbd@germanbangla24.com : Editor : Editor
  4. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  5. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman

পৃথক পৃথক জায়গায় করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো ৯ জনের মৃত্যু

জার্মানবাংলা অনলাইন ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০
প্রতীকি ছবি
Check for details

পৃথক পৃথক জায়গায় করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।রাজশাহী, সাতক্ষীরা, শরীয়তপুর, নড়াইল, ঝালকাঠি, ফেনী,চট্টগ্রাম, বগুড়া ও সাতক্ষীরাতে গত মঙ্গলবার থেকে বুধবার রাত পর্যন্ত সময়ের মধ্যে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের উপসর্গ সর্দি-জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে তিন বছরের এক শিশুও রয়েছে। তবে এরা সবাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কি না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

রাজশাহী : মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে সর্দি-জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হওয়া বুলবুল (২২) মারা যান। তার বাড়ি নাটোরের লালপুর উপজেলায়। রামেক হাসপাতালের করোনা চিকিত্সা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. আজিজুল হক আজাদ জানান, সর্দি-জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বুলবুল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভর্তি হন। এরপর তাকে ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডে নেওয়া হয়। সেখানে অক্সিজেন দেওয়ার সময়ই তিনি মারা যান। তার অ্যাজমা ছিল বলে তারা জানতে পেরেছেন। তবে তারা কোনো চিকিত্সা দেওয়ার সুযোগ পাননি। তার আগেই তিনি মারা যান।

তিনি আরো জানান, বুলবুলের করোনার উপসর্গ ছিল কি না তাও তাত্ক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না থাকায় নমুনা সংগ্রহও করা যায়নি। তবে পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা খুব জরুরি ছিল। রাতেই মরদেহ বাড়ি নিয়ে গেছে তার স্বজনরা। মৃতের স্বজনরা জানান, গত তিন/চার দিন ধরে বুলবুল সর্দি-জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট ভুগছিল। তবে রামেক হাসপাতালে উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, যে যুবক মারা গেছেন, তার সর্দি-কাশি ছিল না। কিন্তু শরীরে জ্বর ছিল। তার রক্তের নমুনা সংগ্রহ করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু স্বজনরা তার লাশ নিয়ে চলে গেছেন।

শরীয়তপুর : শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হওয়া এক রোগী মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় মারা গেছেন। নড়িয়া নিবাসী রফিকুল ইসলামকে (৩৫) মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তাকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছিল। তিনি উপজেলার মোক্তারের চর ইউনিয়নের চেরাগ আলী বেপারিকান্দি ৯ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তার পিতার নাম হামিদ বেপারি। তিনি শ্রমিক ছিলেন।

শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল্লাহ আল মুরাদ বলেন, গত ১৯ মার্চ রফিকুল ইসলাম শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ২৩ মার্চ পর্যন্ত চিকিত্সাধীন ছিলেন। তখন তার যক্ষ্মা ধরা পড়েছিল। এরপর সুস্থ হলে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ মতে সে বাড়িতে অবস্থান করে নিয়মিত ওষুধ সেবন করে আসছিল। জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, যক্ষ্মার জন্য বাড়িতে বসে তিনি ডাক্তারের পরামর্শ মতে নিয়মিত ওষুধ সেবন করে আসছিলেন।

করোনার উপসর্গ থাকায় মৃত ব্যক্তির শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর এ পাঠানো হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

নড়াইল : নড়াইলে শ্বাসকষ্ট, জ্বর, পাতলা পায়খানা, গা ব্যথা নিয়ে শওকত আলী (২৫) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে শওকত আলী নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষণ পর মারা যান। তিনি নড়াইল পৌরসভার দক্ষিণ নড়াইল এলাকার ওমর আলীর ছেলে। তবে করোনার উপসর্গ থাকা সত্ত্বেও মৃতের কোনো নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. তৌহিদুল হাসান তুহিন বলেন, শওকত শ্বাসকষ্ট ও বমির উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষণ পরে মারা যান। সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. মশিউর রহমান বাবু জানান, তার হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয়েছে।

তার বাড়িতে লাল পতাকা টানিয়ে বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। নড়াইলের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল মোমেন বলেন, ঢাকা আইইডিসিআর এর প্রতিনিধির সাথে রোগীর মৃত্যুর বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে কথা বললে তারা জানিয়েছেন এ রোগী স্ট্রোক করে মারা গেছে। তাই মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি।

নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন স্ট্রোক করে তার মৃত্যু হয়েছে।
কাঠালিয়া (ঝালকাঠি): ঝালকাঠির কাঠালিয়ার আমুয়ায় জ্বর ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ৩ বছরের শিশু আলভী সরদার মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মারা গেছে। এ ঘটনায় ঐ বাড়ির ৬টি পরিবারের ৩০ জনকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। নিহত আলভী আমুয়া সরদার পাড়ার সহিদ সরদারের ছেলে।

ফেনী: মোহাম্মদ রিপন (৩০) নামে এক শ্রমিক জ্বর, সর্দি-কাশিতে মারা গেছেন। বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার পশ্চিম ছনুয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে তিনি মারা যান। নিহত রিপন ঐ গ্রামের সুজা মিয়ার ছেলে। জানা গেছে, কয়েকদিন আগে রিপনের জ্বর, সর্দি-কাশি, শ্বাসকষ্ট ও পেটে ব্যথা হতে থাকে। গত সোমবার সকালে তার স্বজনরা ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিত্সক তাকে প্রাথমিক চিকিত্সা দিয়ে বাড়িতে অবস্থানের পরামর্শ দেন। মঙ্গলবার রাত থেকে রিপনের শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। একপর্যায়ে বুধবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়। রিপন ফেনী শহরের সেন্ট্রাল হাইস্কুল সংলগ্ন একটি গ্রিল ওয়ার্কশপে কাজ করতেন বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৬০ বছর বয়সি এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে নগরীর ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) এর করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তবে তার শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছিল না বলে জানিয়েছেন বিআইটিআইডির পরিচালক ডা. এম এ হাসান চৌধুরী।

করোনার উপসর্গ নিয়ে চট্টগ্রামের জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন বেডে থাকা এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল ওই কিশোর মারা যায়। তবে নমুনা পরীক্ষার পর তার শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. অসীম কুমার নাথ।

বগুড়া: বগুড়ায় করোনা উপসর্গে মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল আইসোলেশনে ভর্তির পর সিয়াম (১৩) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ৩টার দিকে গুরুতর শ্বাসকষ্ট ও জ্বর নিয়ে ভর্তির পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু ঘটে। সে গাবতলীর মহিষাবান গ্রামের আব্দুল গফুর সরকারের পুত্র।

প্রচণ্ড জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও সর্দি-কাশি নিয়ে তার স্বজনরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। শিশুটি করোনা ভাইরাস রোগে আক্রান্ত ছিল কি না তা পরীক্ষা করার পর জানানো সম্ভব হবে। এদিকে শহরের নাটাইপাড়া এলাকার এক নারী ৩ দিন আগে জ্বরে আক্রান্ত হন। এরপর তার কাশি, পাতলা পায়খানা এবং শ্বাস কষ্ট দেখা দেয়। তাকে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা : বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মনিরুজ্জামান বলেন, বন্দকাটি গ্রামের আব্দুস সালামের মেয়ে রাশিদা খাতুন শিল্পী (২৫) গত ২৭ মার্চ পাশের ফতেপুর গ্রামে স্বামী সিরাজুল ইসলামের বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে আসেন। গৃহবধূ শিল্পী দুই সন্তানের জননী। কয়েক দিন তার গায়ে ছিল জ্বর। ছিল শ্বাসকষ্ট ও কাশি। এ অবস্থায় বুধবার ভোরে তার মৃত্যু হয়। আর এ মৃত্যু নিয়ে এলাকা জুড়ে তৈরি হয়েছে আতঙ্ক।

বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজ উদ্দিন বলেন, সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হলেও তিনি গৃহবধূর দাফন যাতে যথাযথ মর্যাদায় অনুষ্ঠিত হয় তার জন্য তিনি সেখানে অবস্থান করেন।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details