পর্দা নামলো বাংলাদেশ আন্তজার্তিক নাট্যোৎসব-২০১৯

Check for details

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাশিয়ান বিখ্যাত পাপেটিয়ার, অভিনেতা, নির্দেশক এবং ডিজাইনার নিকোলাই জাইকভের পরিবেশনা ‘এ লাইট পাপেট শো’ দিয়ে পর্দা নামলো ১ম বাংলাদেশ আন্তজার্তিক নাট্যোৎসব ২০১৯। আজ সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে মনোমুগ্ধকর এই প্রদর্শনীটি অনুষ্ঠিত হয়। গতপোরশু ভিয়েতনাম এর নাটকের দল লে নক থিয়েটার মঞ্চস্থ করে নাটক ‘কিম তু’। চীনের নাটক ওয়াইল্ডার্নেস এর ভিয়েতনামীকরন ‘কিম তু’  নির্দেশনা দিয়েছেন সিঙ্গাপুরের নাট্য ব্যক্তিত্ব চুয়া সু পং।
নেপালের মান্ডালা থিয়েটারের প্রযোজনা ঝিয়ালিঞ্চা (গঙ্গাফড়িং) নেপালে চলমান মাওবাদী বিপ্লবের উপর  নেপালের বিখ্যাত লেখক কুমার নাগরকোটির একটি ছোট গল্পের ওপর ভিত্তি করে নাটকটি নির্মিত। এটি পরিচালনা করেন ডিজাহং রাই। নির্দেশনা দিয়েছেন শ্রী রায় এবং সংগীত পরিচালনা করেন অনুপম শর্মা। অভিনয়ে ছিলেন বিজয়াইরাল ও রঞ্জনা ওলিহাস।

এবারের নাট্য উৎসব ছয়টি আন্তজার্তিক নাট্য প্রযোজনার সাথে মাস্টারক্লাস, সেমিনার, কর্মশালা এবং মিট দ্য ডিরেক্টরে সমৃদ্ধ ছিল যা দর্শক এবং নাট্যকর্মীদের মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করে।এছাড়া এই নাট্যউৎসবে দুটি বাংলা এবং দুটি ইংরেজী বুলেটিন বের হয়। এছাড়া  আগামীকাল নিকোলাই জাইকভের পরিচালনায় বাংলাদেশের নাট্যকর্মীদের জন্য  ‘লাইট পাপেট’ বিষয়ক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইন্সটিটিউট বাংলাদেশ কেন্দ্রের বাস্তবায়নে এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান এর সহযোগিতায় ২০-২৬ জুন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা’য় অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসব ২০১৯’। উৎসবে ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন, ভিয়েতনাম, ভারত, নেপাল ও বাংলাদেশের দুইটি নাট্যদলসহ মোট ৮টি দল অংশ নিয়েছে।
২০ জুন ২০১৯ রোজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিটে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে উৎসবের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উৎসব আয়োজনের জন্য সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো আমাদের অতিথি। আমরা তাদের প্রতি সম্মান জানাই। আমাদের এইধরনের আয়োজনের মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের সাথে বন্ধুত্ব সম্পর্ক বৃদ্ধিপায়। আশাকরি এধরনের উৎসবের নিয়মিত আয়োজন অব্যাহত থাকবে।’
উৎসব উদ্ধোধন করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, এমপি। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মো: আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি এর সভাপত্তিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আইটিআই এর সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আইটিআই এর সাম্মানিক বিশ্ব সভাপতি রামেন্দু মজুমদার, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক ও বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়্যারম্যান লিয়াকত আলী লাকী এবং আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নাট্য নির্দেশক রতন থিয়াম। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি-এর হাতে উৎসব স্মারক তুলে দেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, এমপি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরপর সন্ধ্যা ৭.৩০ মিনিটে বাংলাদেশের ধৃতি নর্তনালয়ের পরিবেশনা ও ওয়ার্দা রিহাব এর নির্দেশনায় অনুষ্ঠিত হয় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নৃত্যনাট্য ‘মায়ার খেলা’।

Facebook Comments