1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : germanbangla24.com : germanbangla24.com
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল জামালপুরে নতুন কমিটি গঠন জেলহাজতে শিশু বক্তা রফিকুল ইসলাম মাদানী জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “আঁখি হালদার” আয়েবপিসি’র কার্যনির্বাহী পরিষদের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত জার্মানবাংলা’র ”প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি ”শিরীন আলম” জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “ফারহা নাজিয়া সামি” বাংলাদেশে হরতাল প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেনঃ উচ্ছৃঙ্খলতা বন্ধ না করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয় হবে। জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “মিনহাজ দীপন“ সাকিব আল হাসানের বক্তব্যে কঠোর বিসিবি জার্মানবাংলা’র “প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি “কাইয়ুম চৌধুরী”

নেত্রকোনার সোমেস্বরীর বালু এখন দূর্গাপুরবাসীর অভিশাপ

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯
ট্রাক লড়ির বেপরোয়া গতিতে শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কটি যেন মৃত্যু ফাঁদ
Check for details

সোহান আহমেদ কাকন,প্রতিনিধি নেত্রকোনা: নেত্রকোনার পাহাড়ি কন্যা সোমেস্বরী নদীর বালু উত্তোলন এক সময় দূর্গাপুরের আশির্বাদ হলেও বর্তমানে যত্রতত্র উত্তোলন ও পরিবহনের ফলে তা এখন অভিশাপ হয়ে দাড়িয়েছে দূর্গাপুর পৌরবাসীসহ দূর্গাপুরে ঘুরতে আসা পর্যটকদের। অতিরিক্ত ভেজা বালু পরিবহনে চরম হুমকিতে রয়েছে বিরিশিরি সেতুটিসহ নবনির্মিত শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কটিও। ভেজা বালু পরিবহনকে কেন্দ্র করে সড়কজুড়েই চলছে ব্যাপক চাাঁদাবজি। তবে যত্রতত্র বালু উত্তোলন ও পরিবহন নিয়ন্ত্রনে কাজ করছে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টরা।

নেত্রকোনার সীমান্তবর্তী উপজেলা দূর্গাপুর। উপজেলাটিতে রয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ঘেরা সাদামাটির পাহাড়, সবুজবন, রানিখং মিশন, টং আন্দোলনের প্রতিকৃত রাশিমনি হাজং এর স্মৃতিসৌধ, রয়েছে ভারতের মেঘালয় থেকে নেমে আসা পাহাড়ি কন্যা সোমেশ্বরী নদী। যার মনোরম পরিবেশ ও সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে অনেক আগে থেকেই পর্যটকরা বেড়াতে আসেন এখানে। কিন্তু প্রায় একদশক ধরে নদীটির বুকে জেগে উঠেছে বিশাল বালুচর। সেইসাথে বালুর নিচেই রয়েছে কয়লা ও পাথর। যা উত্তোলনের ফলেই সৃষ্টি হয়েছে কয়েক হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান। স্থানীয় বেশকজ ব্যবসায়ী হয়েছেন আঙ্গুল ফলে কলাগাছ। আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদাবাজিকে কেন্দ্র করে চলে সংর্ঘর্ষ । পাল্টাপাল্টি হামালা মামলায় ঘটছে হত্যাকান্ডের ঘটনাও। নদীতে বালু ঘাট ইজারা দিয়ে প্রতিবছর কোটি টাকা রাজস্ব আয় হলেও যত্রতত্র বালু পাথর উত্তেলন ও পরিবহনের ফলে চরম দূর্ভোগ পেহাচ্ছেন পৌরবাসী। দেশের সবচেয়ে ভালো মানের বালু হওয়ায় এর চহিদা রয়েছে বেশ। দিনরাত ২৪ ঘন্টাই পৌর শহর জুরে নদীর বিভিন্ন অংশেই চলছে বালু পাথর উত্তোলন ও ভেজা বালু পরিবহন। বিকল্প কোন সড়ক না থাকায় পৌর শহরের ভেতর দিয়ে চলাচল করে অতিরিক্ত বালু বুঝাই কয়েক হাজর ট্রাক লড়ি। সড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানযটের। এক কথায় শহরের অভ্যন্তরীন সবগুলো সড়কই এখন বালু ব্যবসায়ীদের দখলে। যে করনে সবচেয়ে বেশী সমস্যায় পরতে হচ্ছে স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ পৌরবাসীর। ঘন্টার পর ঘন্টা অতিরিক্ত ভেজা বালুবাহী ট্রাক বিরিশিড়ি সেতুর উপর অবস্থান করায় চরম হুমকিতে রয়েছে সেতুটি সেইসাথে নবনির্মিত শ্যামগঞ্জ বিরিশিরি সড়কটির স্থায়ীত্ব নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা বলছেন স্থানীয় সাধারন নাগরিকরা।

এদিকে বালু উত্তোলন ও পরিবহনকে ঘিরে বিভিন্ন সংগঠনের নামে বেনামে সড়ক জুড়েই চলছে ব্যাপক চাঁদাবাজি। এদিকে শ্যামগঞ্জ বিরিশিরি সড়কটি ভালো হওয়ায় অদক্ষ্য চালক ও অতিরিক্ত বালু বোঝাই ট্রাক লড়ির বেপরোয়া গতির ফলে চরম আতঙ্কে থাকেন স্থনীয়রা। সড়কটির বিভিন্ন অংশে বাজারসহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্টান থাকলেও নেই কোন গতি প্রতিরোধক ব্যবস্থা। ফলে প্রতিনিয়তই ঘটছে প্রাণহানির ঘটনা।
তবে জনদূর্ভোগ নিরশনে পৌর শহের অতরিক্ত ভেজা বালু পরিবহন নিয়ন্ত্রন ও যত্রতত্র বালু উত্তোলন বন্ধে কাজ করছে স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম। তিনি জানান, মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে বালু ও পাথর উত্তোলনে অনিয়ম নিয়ন্ত্রনের জোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। অদক্ষ্য চালকরা বেপরোয়া ভাবে ট্র্যাক লড়ি চালনার ফলেই দূর্ঘটনা ঘটছে। এগুলো নিয়ন্ত্রনে অচিরেই ট্র্যাফিক আইন প্রয়োগ হচ্ছে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

এদিকে এই মহাসড়কে অদক্ষ্য লাইসেন্স বিহীন চালক ও গতি নিয়ন্ত্রনে ট্র্যাফিক আইন প্রয়োগ ও বিভিন্ন স্থানে স্পীড মিটার স্থাপন করা হচ্ছে। স্পীড মিটার দিয়ে বেপরোয়া গতি নিয়ন্ত্রনে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার আকবর আলী মুনসী।

এদিকে সড়কটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে গতি প্রতিরোধক ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি অতিরিক্ত ভেজা বালু পরিবরহ নিয়ন্ত্রনে ওজন নির্নয়ে ষ্টেশন স্থাপনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। জানিয়েছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুল আলম তরফদার।

সোমেস্বরীতে বালু উত্তোলন একসময় স্থানীয়ভাবে অর্থনৈতিক অশির্বাদ হলেও বর্তমানে যত্রতত্র পরিবহন ও উত্তোলনের ফলে তা এখন অনেকটাই অভিশাপ হয়ে দাড়িয়েছে দূর্গাপুর বাসীসহ ঘুরতে আসা পর্যটকদের। দূর্ভোগ লাঘবে কার্যকর পদেক্ষেপ গ্রহন করবে প্রশাসন এমন প্রত্যাশাই ভুক্তভোঘীদের।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details