“তথ্য ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজই রুখতে পারে অপসংস্কৃতি”

Check for details

হাবিবুর রহমান, গাজীপুর প্রতিনিধি:তথ্যের যথাযথ ব্যবহার নেই বলেই আজ অপসংস্কৃতি বেড়ে গেছে। ক্যাসিনোর যতছত্র ব্যবহার বাড়ছে বলে মনে করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান।

রোববার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসের সিনেট হলে লাইব্রেরি অ্যান্ড ইনফরমেশন সায়েন্স প্রোগ্রামের এমফিল গবেষকদের গবেষণা কর্মের উপর আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, অবাধ তথ্য প্রবাহের যুুগে তথ্যের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা গেলে মানুষ আরো সৃষ্টিশীল হয়ে গড়ে উঠবে, একমাত্র তথ্য ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজই রুখতে পারে অপসংস্কৃতি।

সেমিনারে লাইব্রেরি অ্যান্ড ইনফরমেশন সায়েন্স প্রোগ্রামের ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের ৩ জন এমফিল গবেষক তাদের গবেষণা কর্মের চূড়ান্ত ফলাফল উপস্থাপন করেন। সেমিনারে বিষয় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাসিরউদ্দিন মুন্সী ও অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল আলম। তারা উভয়ে গবেষকদের গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফল সম্পর্কে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
তিন জন গবেষকের সুপারভাইজার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুলের ডিন ও গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. নাসির উদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কারিকুলাম, উন্নয়ন ও মূল্যায়ন কেন্দ্রের ডিন ড. মোহাম্মদ বিন কাশেম। সেমিনারে সভাপত্বি করেন স্নাতকোত্তর শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের ডিন প্রফেসর ড. মো. আনোয়ার হোসেন।
উল্লেখ্য, সেমিনারে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন-ক্যাম্পাস প্রোগ্রামের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দসহ প্রায় দুইশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে তিনটি বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এমফিল গবেষক সাইফুদ্দিন মোল্লা, শেহাবুল আলম ও আনিসুর রহমান।

Facebook Comments