ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস  স্মরণে একক বক্তৃতানুষ্ঠান

Check for details

জার্মান-বাংলা ডেস্ক
বাংলা একাডমী গতকাল বুধবার বিকেল ৪:০০টায় একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে লেখক ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস স্মরণে একক বক্তৃতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। বক্তৃতা প্রদান করেন জনাব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।
স্বাগত বক্তব্যে হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, ড. রণজিৎ বিশ্বাস সত্তর দশকের প্রথমার্ধে লেখালেখি শুরু করেন। তিনি সমাজের বিভিন্ন অসঙ্গতিকে সরল গদ্যে উপস্হাপন করেছেন। তিনি ভাষা সচেতন মানুষ ছিলেন। বাংলা ও ইংরেজি ভাষার ব্যবহারিক শুদ্ধাশুদ্ধি নিয়ে লেখালেখি করেছেন। তাঁর লেখায় বারবার ফিরে এসেছে মুক্তিযুদ্ধের কথা।
একক বক্তৃতায় হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন বলেন, যারা প্রথম ও শেষ বিবেচনায় মানুষকে মানুষ বিবেচনা করেন রণজিৎ কুমার বিশ্বাস তাঁদের জন্য লিখেছেন বলে জানিয়েছেন। এখানেই আমরা রণজিৎ বিশ্বাসের বিশেষত বুঝতে পারি। মানুষের পক্ষে থাকা মানে সত্য ও সুন্দরের সঙ্গে থেকে যুদ্ধ করে যাওয়া; ড. রণজিৎ সেটা কলম দিয়ে করেছেন। তিনি আমাদের ভাষা ও আচরণে শুদ্ধতার উপর জোর দিয়েছেন।

সভাপতির জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, আমি নিজে ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাসের ক্রিকেটবিষয়ক লেখার ভক্ত ছিলাম। তিনি কথার মধ্য দিয়ে খেলা দৃষ্টিগ্রাহ্য করে তুলতেন। তিনি রঙ্গ ও ব্যঙ্গ রচনার মধ্য দিয়ে আমাদের সমাজের অসঙ্গতি তুলে ধরেছেন।

Facebook Comments