1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানবাংলা’র ‘RJ মিউজিক্যাল লাইভ শো’তে এবার আসছে গানের দল “অন্তরীণ” হেসেন ফ্রাঙ্কফুর্ট আওয়ামীলীগ কর্তৃক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২২’ উপলক্ষ্যে ১১ দফা প্রস্তাব উত্থাপন জার্মানবাংলা’র “প্রবাসির সাফল্য” শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “শম্পা কুন্ডু” জার্মানবাংলা’র ‘মিউজিক্যাল লাইভ শো’র এবারের অতিথি কণ্ঠশিল্পী “সাজেদ ফাতেমী” স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী স্বরণ ও দেশনেত্রী’র দোয়ায় বিএনপি’র জার্মানি শাখা। জীবননগরে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১ ব্রাসেলসে অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের অভিষেক দুবাই ওয়ার্ল্ড এক্সপোতে অংশগ্রহণ করবে ওয়েন্ড-এর প্রতিনিধি দল গোধূলির ছায়া

ড্রেসডেন-এ অবস্থানরত বাঙালিরাও উচ্ছ্বাসিত ঈদ উৎসব পালন করেছে

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ১৮ জুন, ২০১৮
Check for details
  • জার্মানিতে থেকে ফাতেমা রহমান রুমা

সকল ভেদাভেদ ভুলে ঈদ আনন্দে হৃদয় ছোঁয়েছে জার্মান প্রবাসী বাঙালিদের মাঝে। উৎসবমুখর পরিবেশে জার্মানির বিভিন্ন শহরে বসবাসকারী সকল বাঙালি প্রবাসীরা ঈদ পালন করেন। ঠিক তেমনি ড্রেসডেন-এ অবস্থানরত সকল বাংলাদেশীরাও মেতে উঠে ছিল উচ্ছ্বাসিত ঈদ আনন্দে।

বাচ্চাদের বিস্কুট দৌড়

শহরের প্রাণকেন্দ্র গ্রোসারগার্টেন-এর মঞ্চে গত ১৬ জুন দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এ ঈদ উৎসব অনুষ্ঠান চলে। আয়োজক কমিটির সদস্যরা পুরো অনুষ্ঠানকে তিনভাবে করেন।

ভাবিদের হাড়িভাঙ্গা

শ্রেষ্ঠ জুটি বাছাই

যেহেতু সারাবিশ্ব এখন ফুটবল জোয়ারে ভাসছে। তাই অনুষ্ঠানের প্রথম পর্যায়ে ছিল বিবাহিত ও অবিবাহিতদের মধ্যে দৃষ্টি-নন্দন ফুটবল খেলা। এতে কোনো দলই জয়সূচক গোল করতে না পারায় খেলার ফলাফল গোলশূন্য ড্র হয়।
দ্বিতীয় পর্যায়ে ছিল বাঙালি বাহারি খাবারের রসনা-বিলাস। বাঙালি ঐতিহ্যবাহী খাবারের সুন্দর পরিবেশনা ও আপ্যায়ন সবাইকে দেশীয় ঈদ উৎসবের আমেজ এনে দেয়। এরপর অনুষ্ঠানে পবিত্র কুরআন থেকে তেলোয়াত করে শিশু নাহিয়ান।
‘রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’ সমবেত কণ্ঠে এই গান দিয়েই মনীষা ও তরীর উপস্থাপনায় শুরু হয় ঈদ উৎসব-এর আকর্ষণীয় তৃতীয় এবং শেষ পর্ব। সবার মাঝে হাস্যরসের মাধ্যমে সুকুমার রায়-এর ‘খিচুড়ি’ কবিতা আবৃতি করে শুনান মোহাম্মদ জিয়ান।
অনুষ্ঠানের আরও আকর্ষণ ছিল শ্রেষ্ঠ জুটি বাছাই, বাচ্চাদের বিস্কুট দৌড়, অবিবাহিতদের প্রেমাভিনয়, ভাবিদের হাড়িভাঙ্গা। সর্বশেষে বিজয়ীদের মাঝে আকর্ষণীয় পুরস্কার বিতরণ।
সকলের সার্বিক সহযোগিতায় এই মনোজ্ঞ ও স্মৃতিবহুল অনুষ্ঠানটির আয়োজক ছিলেন মোহাম্মদ জিয়ান, সৈয়দ ইয়ামিন হোসেন, আবান সোহেল, হিমালয় হাবিব এবং সানিরুজ্জামান শুভ। আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে সকল অতিথিদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সৈয়দ ইয়ামিন হোসেন।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details