1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman Ruma
  3. anikbd@germanbangla24.com : Editor : Editor
  4. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  5. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
অনেকেই সঞ্চয় ভেঙে চলছে : ওবায়দুল কাদের জিয়ান ক্যাস্টিক্স ফ্রান্সের নতুন প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তা পরিস্থিতি দেখতে আচমকা লাদাখ সফরে নরেন্দ্র মোদী ‘ করোনার প্রভাব কমলেই টাইগারদের অনুশীলন শুরু হবে ’ মুগদা জেনারেল হাসপাতালে সাংবাদিকদের ওপর আনসার বাহিনীর হামলা করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় নতুন শনাক্ত ৩১৪৪ , মৃত ৪২ প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়া চক্রের তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি হয়রানির প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের বাংলাদেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রেকর্ড ৩৬.০১৬ বিলিয়ন ডলার রাজাপুরে স্কুলের সম্পত্তি রক্ষায় মতামত সংগ্রহ ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

‘টিকিট থেকেও লাভ নেই টাকা দিতেই হবে’

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১২ জুন, ২০১৯
রাজবাড়ীতে আন্তনগর ট্রেন মধুমতি এক্সপ্রেসের যাত্রীদের কাছ থেকে অবৈধভাবে টাকা নিচ্ছে জিআরপি পুলিশ। কালুখালী রেলস্টেশনে গত রোববার দুপুরে তোলা ছবি। ছবি-প্রথম আলো
Check for details

জার্মান-বাংলা ডেস্ক:রাজবাড়ি রেলওয়ের পুলিশ যেন হয়ে উঠেছে বেপরোয়া,যাত্রীরা তাদের কাছে জিম্মি।টিকিট থাকলেও যাত্রীদের কাছে টাকা আদায় করার অভিযােগ আজ থেকে নয়।

রাজবাড়ীতে আন্তনগর ট্রেন মধুমতির যাত্রীদের কাছ থেকে রাজবাড়ী রেলওয়ে থানার পুলিশ অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যাত্রীদের কাছে টিকিট থাকলেও পুলিশ টাকা নিচ্ছে। এ অভিযোগে গতকাল মঙ্গলবার রাজবাড়ী রেলওয়ে থানার এক কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার নাম আকসাতুর রহমান। তিনি রাজবাড়ী রেলওয়ে থানায় (জিআরপি) সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) হিসেবে কর্মরত।

গত রোববার বেলা পৌনে একটার দিকে দেখা যায়, কালুখালী রেলস্টেশনে ট্রেনটি থামার পর যাত্রীরা নামতে থাকে। এ সময় ট্রেনের বাইরে প্ল্যাটফর্মে এক যাত্রীর সঙ্গে টাকা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন রেলওয়ে পুলিশের এএসআই আকসাতুর। যাত্রী তাঁকে ৫০ টাকা দিতে চাইলে তা নিতে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এ সময় এক যাত্রী বলেন, ‘স্যার, আমি গরিব মানুষ। টিকিট আছে। কাছে বেশি টাকা নেই। আজকের মতো এই টাকা নেন।’

যাত্রীরা বলেন, রোববার আকসাতুর টাকা তুলতে এসেছিলেন। একেক দিন একেকজন টাকা তোলেন। তবে তাঁরা সবাই রাজবাড়ী রেল পুলিশের লোক।

খোকশা থেকে আসা যাত্রী এলেম হোসেন বিশ্বাস বলেন, তাঁরা পাঁচজন গোয়ালন্দের টিকিট কেটেছেন। প্রতিটি টিকিটের দাম রাখা হয়েছে ৬২ টাকা করে। কোথাও জায়গা না পেয়ে মালামালের বগিতে দাঁড়িয়ে আছেন। তাঁদের কাছ থেকে পুলিশ ৫০০ টাকা নিয়েছে। টিকিট দেখালে বলেছে, এর কোনো দাম নেই। টাকা দিতে হবেই। তারা এই বগি কিনে নিয়েছে। টাকা না দিলে বগি থেকে নেমে যেতে হবে।

ট্রেনযাত্রী মো. বাচ্চু বলেন, তিনি পাংশায় থাকেন। রাজবাড়ীতে যাওয়ার জন্য দুটি টিকিট কেটেছেন। তাঁর কাছে ২০০ টাকা চেয়েছে পুলিশ। তিনি টাকা দেননি। তাই তাঁকে কালুখালীতে নামিয়ে দিয়েছে।

কালুখালী রেলস্টেশন এলাকার বাসিন্দা ফরিদ হোসেন বলেন, শুধু ঈদ নয়, প্রায় সময়ই পুলিশ যাত্রীদের ভয় দেখিয়ে টাকা তোলেন। জিআরপি পুলিশ ভাটিয়াপাড়াগামী ট্রেনের টিকিট যাত্রীদের কাটতে দেয় না। পুলিশের কাছে সিট আছে বলে ট্রেনে তোলে।

কালুখালী রেলস্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশনমাস্টার জয়ব্রত সাহা বলেন, তিনি বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাবেন। তবে আগেও জিআরপি পুলিশের বিরুদ্ধে ট্রেনের যাত্রীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগ পেয়েছেন। বিশেষ করে কালুখালী-ভাটিয়াপাড়া এক্সপ্রেসে এ ঘটনা বেশি হয়।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details