1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব

খুলনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে হাজিরা বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ১১ মে, ২০১৯
Check for details

খুলনা প্রতিনিধিঃ খুলনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাজিরা নিশ্চিত করা হচ্ছে। যেখানে মেশিন ক্রয়ে স্লিপ ফান্ডের অর্থ ব্যবহার করা হবে। আগামী জুন মাসের মধ্যে এই কার্যক্রম বিদ্যালয়গুলোতে বাস্তবায়ন করা হবে। ইতোমধ্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
জানা গেছে, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি-৪ এর আওতায় স্লিপ ফান্ড ব্যবহারের হালনাগাদ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের বায়োমেট্রিক হাজিরা নিশ্চিতকরণের জন্য ডিভাইস ক্রয়ের বিধানও রয়েছে। এদিকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীরা বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন সময়ে বাইরে অবস্থান করাসহ শিক্ষা অফিসে ভিড় করার সংস্কৃতি রয়েছে।

কয়লাঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাফিসা ইসলাম বলেন, অনেক স্কুল কিংবা অফিসে এই পদ্ধতিতে হাজিরা হয় বলে তিনি শুনেছেন। এই পদ্ধতিতে হাজিরা হলে যে সকল শিক্ষার্থী নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসে না তারাও ক্লাসে আসতে আগ্রহী হবে।
হ্যানে রেলওয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান বলেন, নতুন পদ্ধতিতে হাজিরা দেওয়ায় খুবই মজা পাওয়া যাবে। ডিজিটাল যুগে এসে খাতায় হাজিরা আর ভাল লাগে না।

চর রূপসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক ফারুক হোসেন বলেন, আধুনিক যুগে আধুনিক পদ্ধতিতে হাজিরা হবে খুবই ভালো। নতুন এ পদ্ধতির প্রতি কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বেশ ভালো থাকবে।
উদয়ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাজিরা হবে এটি তিনি ফেসবুকে দেখেছেন। অফিসিয়ালি কোনো চিঠি পাননি। মৌখিকভাবে শুনেছেন যার কারণে তিনি স্লিপ ফান্ডের পরিকল্পনা বাজেটে মেশিন কেনার বিষয়টি সংযুক্ত করেছেন।

খুলনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এএসএম সিরাজুদ্দোহা বলেন, জুন মাসের মধ্যে বিদ্যালয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাজিরা নিশ্চিতকরণের কার্যক্রম শেষ করতে হবে। উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে এ কাজ বাস্তবায়নের কাজ শুরু করেছেন। এই কাজের সরঞ্জাম সরবরাহের জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা কথা বলছেন। যে প্রতিষ্ঠান থেকে অধিক সেবা পাওয়া যাবে সেই কোম্পানি থেকে এই সরঞ্জাম নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details