1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব

কুষ্টিয়ায় পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ইসিজির নামে ধর্ষণের চেষ্টা

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯
কুষ্টিয়ায় পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ইসিজির নামে রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে লম্পট আরিফ কে আটক করেছে পুলিশ
Check for details

এ.কে আজাদ সানি, কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়ায় পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ইসিজির নামে রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে লম্পট আরিফ কে আটক করেছে পুলিশ ৷

জানা যায়, (২৫শে এপ্রিল) বৃহস্পতিবার সকালের দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল থেকে একটি রোগীকে কৌশলে ইসিজি করার নাম করে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে আসে দালাল আরিফ। পরবর্তিতে উক্ত দালাল নিজেই ইসিজি করতে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভেতরে একটি রুমে নিয়ে যায় ভুক্তভোগী মেয়েটিকে। একপর্যায়ে মেয়েটিকে ইসিজি করার কথা বলে স্বামী ও সন্তানদের উক্ত রুম থেকে বের করে দিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করে দালাল আরিফ। পরে মেয়েটির চিৎকারে স্বামী ছুটে গেলে লম্পট আরিফ পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, হাসপাতালের কিছু ডাক্তার দালালদের পৃষ্ঠপোষক। তাদের ছত্রছায়ায় কিছু দালাল এসব অপকর্মগুলো নির্বিঘ্নে চালিয়ে যায়। হাসপাতালের বেশকিছু ডাক্তারের প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার থাকার কারণে রোগীরা প্রতিনিয়ত চিকিৎসা সেবা নিতে যেয়ে দালাল চক্রের খপ্পরে পড়ে প্রতারিত হচ্ছে।

দুই সন্তানের জননী ভুক্তভোগী নারী জানান, আজ তিনি বুকে ব্যাথার জন্য হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে এসেছিলেন। হাসপাতালের ডাক্তার দেখিয়ে ফেরার পথে দালাল আরিফের খপ্পরে পড়ি। সে আমাকে ফুঁসলিয়ে ইসিজি করার নাম করে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আমার স্বামী ও সন্তানদের বের করে দেয়। এরপর আমার জামা কাপড় খুলে সারা গায়ে ক্রিম লাগিয়ে স্পর্শ কাতর জায়গাগুলোতে টিপতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে আমি চিৎকার দিলে দালাল আরিফ পালিয়ে যায়। আমার স্বামী ঘটনাটি দ্রুত কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশকে জানায়। কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশের ওসি তদন্ত সঞ্জয় কুমার দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে এবং আরিফকে আটক করতে সক্ষম হয় ।

কুষ্টিয়া সদর হাসপাতাল যেন দালালের অভয় আশ্রম। প্রতিনিয়তই রোগীদের ভাগিয়ে নিয়ে বিভিন্ন ক্লিনিকে গিয়ে পরীক্ষার নামে চলছে প্রতারণা।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি তদন্ত সঞ্জয় কুমার জার্মান বাংলা নিউজকে জানান, দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ আমাদের কাছে আসলে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ধর্ষণের চেষ্টাকারী কুষ্টিয়া মডেল থানাধীন রহিমপুর মন্ডল তেল পাম্পের পাশের জাকির হোসেনের ছেলে আরিফুল ইসলামকে আটক করি। আরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details