1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মানিতে বিএনপি’র কর্মীসভা ‘বর্তমান সরকার উন্নয়নের সরকার’ : এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা

একই পরিবারের ৬ মাদক ব্যবসায়ী আটক

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২৯ জুন, ২০১৮
Check for details

জার্মানবাংলা২৪ ডটকম, গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জে ইয়াবাসহ একই পরিবারের ৬ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার করপাড়া বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন নদীর পাড়ে মান্নান ফকিরের বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, পরিবার প্রধান মান্নান ফকির (৬০), ছেলে শাহিদুল ফকির (৪৫), মেয়ে শারমিন আক্তার ওরফে রেহানা খানম (৪০), ছেলে ওহিদুল ফকির (৩৫), মেয়ে জোসনা খানম (৩০) ও জামাতা আওলাদ হোসেন (৩৫)।

গোপালগঞ্জ সদর থানা সূত্রে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল)-র নেতৃত্বে গোপালগঞ্জ থানা পুলিশ করপাড়ার ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায় জড়িত সন্দেহে একই পরিবারের ৬ জনকে আটক করা হয়। পরে তাদের বসতঘর তল্লাসী করে শারমিন আক্তার ওরফে রেহানা খানমের ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে ২শ ৯৬ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। রেহানা খানমের বিরুদ্ধে কক্সবাজার থানাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে বলেও জানা গেছে। পুলিশ তাৎক্ষনিক জিজ্ঞাসাবাদ করে আটককৃতদের মাদক ব্যবসায় জড়িত বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো: সানোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আরো মাদক উদ্ধার ও ওই পরিবারের অর্থ-যোগান দাতার সন্ধান করার জন্য আটককৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details