1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman Ruma
  3. anikbd@germanbangla24.com : Editor : Editor
  4. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  5. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
মেস মালিকদের শিক্ষার্থীদের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার আহ্বান এন ইউ উপাচার্যের ওদার হাটে সামান্য বৃষ্টিতেই জমে যায় পানি , দুর্ভোগ জনসাধারনের ঝালকাঠিতে ‘শুদ্ধাচার কৌশল’ বিষয়ক কর্মশালা সংক্রমনের হার প্রতিদিন বাড়লেও,কমছে হাসপাতালে রোগী ভর্তির সংখ্যা অনলাইনে অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত উইজডেনের স্বীকৃতি পেয়ে আপ্লুত সাকিব আল হাসান মাস্ক না পরলে রাষ্ট্রীয় সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন নাগরিকরা : রুহানি করোনা : কারফিউ তুলে নেয়ায় সংক্রমণ বেড়েছে ইউএই ও সৌদিতে পাঁচ দফা দাবিতে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের বিক্ষোভ করোনা : রেড থেকে ইয়েলো জোনে মানিকগঞ্জের সাত এলাকা

ইতালিতে বাংলাদেশী ডাক্তার হিসেবে প্রথম শপথ নিলো তিসাদ

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০১৯
ইতালিতে বাংলাদেশী ডাক্তার হিসেবে প্রথম শপথ নিলো তিসাদ
Check for details

মিনহাজ হোসেন,ইতালি প্রতিনিধি:বারো বছর বয়সে মায়ের সাথে ইতালিতে আসেন তাহমিদ তিসাদ। বাবা এ কে এম সেলিম একজন ব্যবসায়ী। তিনি ইতালিতে আসেন ১৯৯৭ সালে। ইতালিয়ান স্কুলে ভর্তি হয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলে পড়াশুনায় ভালো ফলাফল করলে নিজের ইচ্ছায় এবং মা বাবার উৎসাহে আরো ভালো ফলাফল করে নিজেকে প্রতিষ্টিত করতে প্রবল ইচ্ছা জাগে তাহমিদ তিসাদ এর । সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ২০১৭ সালে পাদোভা শহরের পাদোভা ইউনিভার্সিটি থেকে এম বি বি এস পাশ করে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মুখ উজ্জ্বল করেছেন তিসাদ।

গত ১৮ মে ২০১৯ পাদোভা মেডিকো বিভাগের এম বি বি এস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল শিক্ষার্থীদেরকে সম্মাননা ও শপথ অনুষ্ঠানে প্রায় দুই শতাধিক ছাত্রছাত্রীদেরকে শপথ বাক্য ও সম্মাননা স্মারক তুলে দেন মেডিকেল ইউনিভার্সিটির প্রধানরা। সেই অনুষ্ঠানে একমাত্র প্রবাসী বাংলাদেশিদের হয়ে শপথ ও সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন তাহমিদ তিসাদ। তিনি বর্তমানে ইতালিতে এফ সি ফি এস এর উপর উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তাহমিদ তিসাদ এর বাবা পাদোভা শহরের প্রবাসী এ কে এম সেলিম ও তার মা শামীমা আক্তার ছেলের এই ফলাফলের কারণে খুবই আনন্দিত এবং গর্বিত।

তিনি আরো বলেন আমার ছেলের জন্ম এই দেশে না। কিন্তু সে এই দেশে বড় হয়েও বিদেশিদের সাথে পাল্লা দিয়ে ভালো ফলাফল করেছে। তার এই ফলাফলের কারণে আমাদের বাংলাদেশী প্রবাসীদের বিদেশিদের কাছে মুখ উজ্জ্বল করেছে।

তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে। উনার মেয়ে তানজিনা তাজনিন ২০১৮ সালে চক্ষু বিভাগে গ্রেজুয়েশন শেষ করে বর্তমানে মাস্টার্সে পড়াশুনা করছে। উনাদের দেশের বাড়ি ঢাকা বিভাগের গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার নবীপুর গ্রামে। তিসাদ এর এই ফলাফলে ইতালিতে বেড়ে উঠা এই প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা ও অভিবাবকরা আরো উৎসাহিত হবেন বলে আশা করছেন অনেক প্রবাসী।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details