1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. adminmonir@germanbangla24.com : monir uzzaman : monir uzzaman
  3. fatama.ruma007@gmail.com : Fatama Rahman Ruma : Fatama Rahman
  4. anikbd@germanbangla24.com : SIDDIQUE ANIK : ANIK SIDDIQUE
  5. infi@germanbangla24.com : Hasan Imam Juwel : Hasan Imam Juwel
  6. rafid@germanbangla24.com : rafid :
  7. SaminRahman@germanbangla24.com : Samin Rahman : Samin Rahman
শিরোনাম :
জার্মান বিএনপির হেছেন প্রাদেশিক কমিটির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত জার্মানির মানহাইমে জমজমাট ঈদ পুনর্মিলনী ও গ্রিল পার্টি লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা করোনা টিকার প্রসঙ্গে ও করোনার তৃতীয় ঢেউ: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাষ্ট্রদূত, জার্মানি বাংলাদেশ জার্মান জাতীয়তাবাদী কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে সেপটি ট্যাংকের সেন্টারিং খুলতে গিয়ে নিহত ২ জামালপুরে ‘বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন’ এর মাক্স বিতরণ করোনা : সখীপুরে লকডাউন বিধিনিষেধ অমান্য করায় জরিমানা করোনা : সাতক্ষীরা পুলিশের মোটরসাইকেল র‌্যালি ও মাস্ক বিতরণ লেবানন বিএনপির সভাপতি বাবু, সম্পাদক আইমান, সাংগঠনিক হাবিব

আমি শবনম একটা সেক্টর চাই দুর্নীতি মুক্ত

জার্মানবাংলা২৪ রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৮
Check for details

ইদ্রিস আলম: ৯দফা দাবি নিয়ে আজ ষষ্ঠ দিন চলছে। শুরুটা যোক্তিক ছিল কিন্তু এখন যত দিন গড়াচ্ছে মনে হচ্ছে বিষয়টা অন্য খাতে যাচ্ছে। সম্প্রতি শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনকে ঘিরে লেখা একজন সৎ পুলিশ অফিসারের ব্যক্তিগত চিন্তা ও মতামত হবুহু তুলে ধরা হলো।

“পুলিশের চাকুরী করি বলেই মানুষের সমস্যা দেখলে এড়িয়ে যেতে পারি না। আজ সারা দেশ উত্তাল। নিরাপদ সড়ক চাই। আমিও চাই। নিরাপদ সড়ক হলে সবচেয়ে আমারি লাভ বেশি। কেন জানেন?

আমি আপনাদের সেবার জন্য দ্রুত দোরগোড়ায় পৌঁছে যাব। আমরা এদেশ এ মাটির সন্তান। এই দেশ, এই দেশের মানুষ কে আমি আপনি সবাই চিনি। প্রিয় শিক্ষার্থী, আপনারা কি জানেন নিম গাছ রোপন করে আম ফল আশা করা যায় না।

আন্দোলনটা সমর্থন করেছিলাম। আপনার জীবনের মতোই আমার জীবনটা দামি বলে।কিন্তু ভাষার ব্যবহার আমাকে স্তব্ধ করে দিয়েছে।মনে হচ্ছে আন্দোলনটা আজ আর নিরাপদ সড়ক চাই বলে প্রতীয়মান হচ্ছেনা।

মনে হচ্ছে পুলিশ বনাম ছাত্র। এতে আমি মোটেও বিচলিত নয়। কারণ যার শিক্ষা যতটুকু।পুলিশকে গালি দিলেই আমার জাত যাবে এমনটা আমি কখনও মনে করি না।

আজ আপনাদের কিছু বলতে চাই, শিক্ষকগন ক্লাসে ভালো পাঠদান না করে কোচিং চালায়, বাবারা সন্তানের জন্য জিপিএ পাঁচ কেনে। ডাক্তার টেস্ট বাণিজ্য আর ফি বাণিজ্য করে, ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট তৈরি করে ফায়দা লুটে। যারা বাড়ি করে তারা আইন না মেনে কসাই এর মতো ভাড়া নেন। রিকসাওয়ালা দশ টাকার পথ ত্রিশ টাকা নিচ্ছেন। সরকারী আমলা, কর্মকর্তা, কর্মচারী (brta, ভুমি অফিস, হাসপাতাল) সবাই নিজের ফায়দা লুটছেন।

আপনার সন্তানেরা কি জানেনা আপনার চরিত্র কেমন? নাকি এসব জানতে নাই। আপনাদেরই তো ছেলেমেয়ে তাই না!!!! সরকারী দল বা বিরোধী দল এরাতো এই দেশেরই মানুষ তবে কাদের স্বভাবে এমন।

দায়ী এদেশের জনগণ। তারা নিজে নিজের দোষ দেখে না। দোষ সবসময় দেখে পুলিশের।এতে নিজেদের দোষ যেমন ঢাকা যায় তেমনি ফায়দা ও লুটা যায় নির্বিচারে। সবাই জানে সবার চরিত্র তারপরও শুধরাই না।

মজার ব্যাপার জানেন,যেদিন ব্রেকহীন বাস চালিয়ে মানুষকে বাঁচালাম সেদিন কিন্তু কেউ বলেনি আপনার লাইসেন্স আছে কিনা আর আজ আমার বাইক থামিয়ে বলে আপনার গাড়ীর রুট পারমিট দেখান। আমি কাউকে আমার লাইসেন্স দেখাতে বাধ্য নই। আমার লাইসেন্সের বিষয়ে যদি সন্দেহ থাকে তাহলে আইন অনুযায়ী বিআরটিএ এর পরিদর্শক সাহেব খতিয়ে দেখবেন।

শিশুদের যত সহজে গাড়ীর কাগজপত্র দেখাচ্ছেন এতো সহজে তো আমাদের দেন না। যখন ফোন দিয়ে তদবির করে চাকুরী খেয়ে নেন তখন তো আপনার ভুলের জন্য লজ্জা হয় না। এই দেশের মানুষ বড় সুযোগ সন্ধানী, ফায়দা লুটে সাধু সাজতে সময় নেন না। আমি শবনম একটা সেক্টর চাই দুর্নীতি মুক্ত।

দিতে পারবেন,আমি গোলাম হয়ে থাকবো। আর আমার প্রিয় শিক্ষার্থীগণ আপনারা নিশ্চয়ই এই সকল বাবা মায়েরই সন্তান। তাই বলছি, নিজেদের বাবা মাকে প্রশ্ন করেন তাদের ইনকাম সোর্স। আন্দোলন ছিল নিরাপদ সড়ক চাই কিন্তু এখন মনে হচ্ছে আন্দোলনের বিষয়টাই হাওয়া হয়ে গেছে।

যে বিষয় নিয়ে আন্দোলন করছেন সে বিষয়ে দূঢ় থাকেন। সমর্থন পাবেন। অকথ্য ভাষা ব্যবহার করে, আইন নিজের হাতে নিয়ে, গাড়ীর লোকদের কাছে থেকে টাকা নিয়ে, মানুষের সাথে দুর্ব্যবহার করে প্রমাণ করে দিলেন আপনারাই হবেন আগামীর কোন মাপের কাণ্ডারি।

আর সুধীসমাজ গণ অযথাই উসকানি দিয়ে আন্দোলনটার তো বারোটা বাজিয়ে দিয়েছেন।এর ফল কিন্তু আমি আপনারাই ভোগ করবো। আর হ্যাঁ আমাকে দেখানোর জন্য যারা পুলিশ নিয়ে মাখামাখি করছেন তাদের বলছি, আমাকে প্রয়োজন যেন আপনাকে লজ্জায় না ফেলে।

কারণ দিনশেষে আমিই সুখী সবাই তাদের প্রয়োজনে আমারই কাছে আসে। আর একটা নিরেট সত্য কথা বলি, প্রত্যেকেই একটা নোংরা মোটিভ নিয়ে রাস্তায় নামে যার জন্য আমার জম্মের পর কোন আন্দোলনকেই নিরপেক্ষ আর ফলপ্রসূ হতে দেখলাম না। সবখানেই একটা স্বার্থন্বেষী জিহবা লক লক করে ফায়দা লুটতে। সবাই নিরাপদে থাকুন।

প্রয়োজনে আমি আপনার পাশে। আজ যারা গালি দিচ্ছেন প্লিজ সেবা নিতে লজ্জ্বা করবেন না।

শেয়ার করুন:
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেসবুকে জার্মানবাংলা২৪

বিজ্ঞাপন

Check for details